নারীরা বেশি একাকিত্বে ভুগছেন করোনাকালে

মহামারী করোনাভাইরাস মানুষের শরীরের সাথে সাথে মনেও গভীর প্রভাব ফেলছে। কেননা করোনাকালের বন্দিত্ব মানসিক স্বাস্থ্যের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলছে। ফলে প্রতিদিনই গণমাধ্যমে বিষণ্নতার ঘটনা চোখে পড়ছে। অনেকে অতিরিক্ত হতাশা সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যার পথও বেছে নিচ্ছেন।

জানা যায়, কারোনাকালে ঘরবন্দি থাকায় বয়স্কদের চেয়ে তরুণদের মানসিকভাবে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হতে দেখা যাচ্ছে। আর এ তরুণদের মধ্যে লিঙ্গভেদে হিসেব করলে দেখা যাবে, এর প্রভাব সবচেয়ে বেশি পড়ছে নারীদের উপর। সম্প্রতি একটি গবেষণায় এমন চিত্রই উঠে এসেছে।

গবেষণায় দেখা গেছে, গৃহবন্দি হওয়ার কারণে তিন জন নারীর মধ্যে একজন নারী একাকিত্বে ভুগছেন। ইউনিভার্সিটি অব এসেক্সের কিছু অর্থনীতিবিদ এ গবেষণা পরিচালনা করেন। তাদের দাবি, করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের মধ্যে নারীরা পুরুষদের চেয়ে বেশি মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যায় পড়েন।

গবেষণায় আরও জানা যায়, করোনাভাইরাস চলাকালীন মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা সম্পর্কিত মানুষের সংখ্যা ৭ শতাংশ থেকে বেড়ে ১৮ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। বিশেষত নারীদের ক্ষেত্রে এ পরিসংখ্যান ১১ শতাংশ থেকে ২৭ শতাংশে বেড়েছে। গবেষকরা মনে করেন, এসময় বাচ্চা, ঘর এবং অফিসের কাজ একসঙ্গে সামলানোয় তাদের মানসিক চাপ বাড়ছে।

সমীক্ষায় দেখা যায়, ৩৪ শতাংশ নারী জানান, তারা কোনো কোনো সময় একাকিত্ব অনুভব করেন। ১১ শতাংশ জানান, তারা প্রায়ই ভীষণ একাকিত্ব অনুভব করেন। ২৩ শতাংশ জানান, তারা কোনো কোনো সময় একাকিত্ব অনুভব করেন। ৬ শতাংশ বলেন, তারা প্রায়ই একাকিত্ব বোধ করেন।

সূত্র জানায়, গবেষণাটি একটি অনলাইন সাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে করা হয়েছে। এর আগে এ ধরনের বিষয়গুলো নিয়ে অনেক গবেষণা হয়েছে। তাতে দেখা যায়, ঘরের কাজ, সন্তান পালন, নিজের প্রতি খেয়াল রাখা- এসবের কারণে বিশ্বে প্রত্যেক নারী প্রচুর চাপে থাকেন।

বছরের শুরুতেই একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, নারীরা তাদের কাজের প্রতি দায়বদ্ধ থাকার পরেও বাড়ির অনেক বেশি দায়িত্ব গ্রহণ করেন, ফলে তাদের স্বাস্থ্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়। শিক্ষিত ও চাকরিজীবী নারীর সংখ্যা বাড়ছে, তবে পরিবারের প্রতি দায়িত্ব-কর্তব্য কিন্তু কমেনি।

পূর্ববর্তী পড়ুন

নিজের স্ত্রীকে আলমারিতে লুকিয়ে রাখতেন সাকলাইন

পরবর্তী পড়ুন

করোনাভাইরাসে ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ৪০১৯ ও মৃত্যু ৩৮

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seventeen − one =

সর্বাধিক পঠিত